প্রতিদিনের বাংলাদেশ ডেস্ক:

পদ্মা সেতুর ১৫তম স্প্যান বসানোর কাজ আরও দুদিন পিছিয়ে যাচ্ছে। কারণ ১৫তম স্প্যানটি বসানো হবে ২৩ ও ২৪ নম্বর পিলারে, আর সেখানেই হয়েছে বিপত্তি। লিফটিং ক্রেন ২৩ ও ২৪ নম্বর পিলারে কাছে পৌঁছাতে পলি-বালির বাধার মুখে পড়েছে। তবে প্রকৌশলীরা জানিয়েছেন খুব তাড়াতাড়িই বালির বাধা কেটে যাবে।

এ অবস্থায় মুন্সিগঞ্জের মাওয়া থেকে স্প্যান তুলে নিয়ে পিলারের কাছাকাছি আটকে রাখা হয়েছে। তবে স্প্যান পিলারে বসানোর আগে অন্য একটি ক্রেনে বিশেষ লাল ফ্রেম বসাতে হয়। এখন সেটির কাজ চলছে। আর এসব কারণে পদ্মা সেতুর ১৫তম স্প্যান বসানোর কাজ বিলম্বিত হচ্ছে।

এ বিষয়ে পদ্মাসেতু প্রকল্পের একজন প্রকৌশলী জানান, স্প্যান পিলারের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। এখন লিফটিং ক্রেন ওঠানোর কাজ চলছে। আনুষাঙ্গিক যন্ত্রপাতি বসানো শুরু হয়েছে। প্রস্তুতি কাজ সারতে বুধবার (১৬ অক্টোবর) সারাদিন লেগে যেতে পারে। এরপর দিন অর্থ্যাৎ বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) স্প্যান ওঠানো সম্ভব হবে। এতে পদ্মা সেতুর প্রায় আড়াই কিলোমিটার অংশ দৃশ্যমান হবে।

মূল সেতুর প্রকৌশলীরা জানান, লিফটিং ক্রেন উঠানোর জন্য ২৩ ও ২৪ নম্বর পিলারের  নিচের বালি সরাতে সেখানে দুটি ড্রেজার দিয়ে অনবরত ড্রেজিং কাজ চলছে। কারণ ওই দুই পিলারে নিচে প্রচুর পলি ও বালি রয়েছে। এ অবস্থায় ১৫তম স্প্যানটি ২০ ও ২১ নম্বর পিলারের সঙ্গে ক্রেনে ধরে রাখা হয়েছে।

সূত্র জানায়, পদ্মার পিলারে ১৪টি স্প্যান বসিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেতুর সবগুলো পিলারে পাইলিংয়ের কাজও শেষ হয়েছে আগেই। এখন জাজিরা প্রান্তে স্প্যানের উপরিভাগে সড়ক নির্মাণ শুরু হয়েছে। এছাড়া রেলস্প্যান বসানোর কাজ অনেকদূর এগিয়ে গেছে।

এছাড়া এখন ছয়টি স্প্যান বসানোর জন্য শতভাগ প্রস্তুত রয়েছে। এর মধ্যে চারটি কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে এবং দুটি চর এলাকায় বসিয়ে রাখা হয়েছে। চীন থেকে এ পর্যন্ত ৩০টি স্প্যান এসে গেছে। এর মধ্যে ১৪টি স্প্যান স্থাপন করা হয়েছে। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে ছয়টি স্প্যান লাগাতার বসিয়ে দেওয়া যাবে বলে জানা গেছে।

পদ্মা সেতুর প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম জানান, কয়েকটি স্প্যান প্রস্তুত থাকায় এবং ড্রেজিং ও আবহাওয়া অনুকূল বিবেচনায় তারা স্প্যান বসানো প্রক্রিয়া আবার শুরু করতে যাচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, পদ্মা সেতুর ৪২টি পিলারে মোট ৪১টি স্প্যান বসবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here